শনিবার; ১৫ জুন, ২০২৪ খ্রি. Dashboard

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন দিন
সর্বশেষ :
হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি, নদীপাড়ে আতঙ্ক কুড়িগ্রামের উলিপুরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে ৩২টি সিসি ক্যামেরা বসালো পুলিশ ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে কুড়িগ্রামে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামারেরা কুড়িগ্রামে বিভিন্ন পশুর হাটে জেলা পুলিশের নিরাপত্তা জোরদার কুড়িগ্রামের চর রাজিবপুরে সরকারি বিতরণকৃত চাল জব্দ
16 December

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জলঢাকায় এক পুলিশ কর্মকর্তার অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে জনসাধারণের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: শুক্রবার; ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রি. - ১২:২৭ পি.এম. | দেখেছেন: ২৮৯ জন।

জলঢাকায় এক পুলিশ কর্মকর্তার অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে জনসাধারণের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

স্টাফ রিপোর্টার :

 

 

 

নীলফামারীর জলঢাকায় মানুষকে জিম্মি করে ঘুষ,দুর্নীতি, মাদক সেবন সহ নানান অনৈতিক  কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অপরাধ তুলে ধরে পুলিশের এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

৫ সেপ্টেম্বর ২৩ ইং তারিখ মঙ্গলবার  রাতে পুলিশের উপ পরিদর্শক মামুনের এমন কার্যকলাপের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের উদ্যোগ প্রতিবাদ সমাবেশ থানা মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়।সমাবেশে ভুক্তভোগী জনগনের সঙ্গে একাত্ততা ঘোষনা করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল ওয়াহেদ বাহাদুর। 

 

তিনি বলেন,পুলিশ জনগনের বন্ধু, যেখানে অনিয়ম, অপরাধ,মাদক নিয়ন্ত্রণ, মানুষের নিরাপত্তা পুলিশ দিয়ে থাকে।এই পুলিশ যদি এসব কর্মকান্ডে নিজেরাই জড়িয়ে  পরে তাহলে অপরাধীদের নিয়ন্ত্রণ  করবে কিভাবে? পুলিশের উপ সহকারী পরিদর্শক মামুন সাহেবের অত্যাচারে জলঢাকাবাসী অতিষ্ঠ। 

 

তিনি মাদকের সাথে জড়িত, নিজেও মাদক সেবন করেন।তাকে ড্রোপ টেষ্ট করা হউক। তিনি আরো বলেন, মানুষের পকেট থেকে টাকা বের করে নিতে এই পুলিশ  অফিসার ছিনতাইকারীর ভুমিকায় অবতীর্ণ  হয়েছে।

 

ট্রক্টর কোম্পানি সোনালীকার কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা  ঘুষ গ্রহন করেছেন। আরেকজনের ড্রয়ার ভেঙ্গে টাকা লুট করেছেন।


প্রতিবাদ সমাবেশে উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের আনছার হাট এলাকায় দোকান ঘর দখল নিয়ে ঘটনায় ৮০ বছরের বৃদ্ধ মাওলানা মনসুর আলী  কে আটক করার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি আরো বলেন পুলিশের উপ সহকারী পরিদর্শক (এএস আই) মামুন কোন অদৃশ্য শক্তির কারনে এবং ওসিকে না জানিয়ে ঘুষ, দুর্নীতি সহ অহেতুক জনগনকে ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায় করা সহ বিভিন্ন নাশকতার মামলার আসামিদের সাথে নিয়ে আনছার হাটে দোকান ঘর দখল ও উচ্ছেদ করেন এবং কোন কারন ছাড়াই  শ্রমিক সংগঠন সমুহের কার্যালয়ে  অভিযান ও তল্লাশি  চালিয়ে ভাংচুর করে টেবিলের ড্রয়ারে থাকা অর্থ হাতিযে নেন । 

এ বিষয়ে আমি তার সাথে কথা বললে মামুন আমার সাথে উচ্চবাক্য সহ বিভিন্ন ভাষায় কথা বলেন ও আনছার হাট মাদ্রাসার সভাপতি জয়নালকে মোবাইলে হুমকি প্রদান করার কারনে আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে তাকে শাস্তিমুলক ব্যাবস্থা গ্রহন না করলে আগামী উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে না বলে ঘোসনা দেন। 

 

অন্যথায় তীব্র আন্দোলন গড়ে তেলা হবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে এ এস আই মামুন বলেন আমি অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মাত্র  তিন মিনিট অপেক্ষা করেছি ।তাছাড়া এধরনের কোন ঘটনা ওই স্থানে ঘটেনি। থানা অফিসার ইনচার্জ মোক্তারুল আলম বলেন, এটা তুচ্ছ ঘটনা, আমার অফিসার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে হট টকিং করেছে।আমি অফিসাকে শাসিয়েছি। পরিস্থিতি শান্ত আছে।

 


এ সময উপস্থিত ছিলেন ট্রাক ট্যাংকলড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি  আমিনুর রহমান, স মিল শ্রমিক  ইউনিয়নের সভাপতি ও শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি জামাদুল ইসলাম  ভ্যাবল, সাধারন সম্পাদক জোনাব আলী, প্রজন্ম লীগের সভাপতি মশিউর রহমান হিট্টু,সাবেক যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম পিকু,উপজেলা  আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ছাত্র লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আজম সরকার প্রমুখ সহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন সহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

 

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন