রবিবার; ১৬ জুন, ২০২৪ খ্রি. Dashboard

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন দিন
সর্বশেষ :
হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি, নদীপাড়ে আতঙ্ক কুড়িগ্রামের উলিপুরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে ৩২টি সিসি ক্যামেরা বসালো পুলিশ ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে কুড়িগ্রামে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামারেরা কুড়িগ্রামে বিভিন্ন পশুর হাটে জেলা পুলিশের নিরাপত্তা জোরদার কুড়িগ্রামের চর রাজিবপুরে সরকারি বিতরণকৃত চাল জব্দ
16 December

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শিক্ষক সাইফুলের বিরুদ্ধে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন

প্রকাশিত: সোমবার; ১০ জুন, ২০২৪ খ্রি. - ০৮:৪৪ পি.এম. | দেখেছেন: ৪৩ জন।

শিক্ষক সাইফুলের বিরুদ্ধে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক,

রাজশাহী:

 

 

 

রাজশাহীর মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ইসলাম শিক্ষা বিষয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোঃ সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে নিয়ম বর্হিভূতভাবে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে সপ্তম শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তিসহ নানা অনিয়মের খবর বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

 

শিক্ষক সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে  বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই তার বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানায়। বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভাপতি ইউএনও আয়শা সিদ্দিকা রোববার (৯জুন) তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

 

তদন্ত কমিটির আহবায়ক হলেন উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ খন্দকার সাগর আহম্মেদ। কমিটির সদস্যরা হলেন, অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা এম এ মান্নান, একাডেমিক সুপারভাইজার আব্দুল মতিন। তদন্ত কমিটিকে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত করে ইউএনও কে লিখিত জবাব দিতে নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন।

 

অভিযুক্ত শিক্ষক সাইফুল ইসলাম  বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

 

মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কুমার দেবনাথ বলেন, তার বিদ্যালয়ের শিক্ষক সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে তদন্ত শেষে তদন্ত কমিটি যে সিদ্ধান্ত দেবে সেটিই বাস্তবায়ন করব।

 

উল্লেখ্য, মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ইসলাম শিক্ষা বিষয়ের সিনিয়র শিক্ষক সাইফুল ইসলামের  বিরুদ্ধে নিয়ম বর্হিভূতভাবে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে সপ্তম শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তি, পাঠদানে ফাঁকি, শিক্ষার্থীদের সাথে অশালীন আচরণ, অকারণে শিক্ষার্থীদের সাসপেন্ড ও টিসি দেওয়া, সরকারি টাকা আত্মসাত, উর্ধতন কর্মকর্তার নামে শিক্ষকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে অন্যত্র বদলীর হুমকি,পরীক্ষায় ফেল দেখিয়ে মিউচুয়াল ট্রান্সফার বানিজ্য, একই উপজেলায় ১৮ বছর চাকুরীসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। তার এহেন কর্মকান্ডের কারণে পুরো উপজেলায় চলছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়।

 

 

 

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন